Indian National Song / জাতীয় সংগীত Of India - Vande Mataram ( বন্দে মাতরম ) By Bankim Chandra Chattopadhyay In 1882

 জাতীয় সংগীত Of India - Vande Mataram ( বন্দে মাতরম )



ভারতীয় জাতীয় সংগীত বন্দে মাতরম গানটি নেওয়া হয় আনন্দমঠ উপন্যাস থেকে । ভারতীয় জাতীয় সংগীত এর প্রথম রচানা করে ছিলেন বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ১৮৮২ সালে । আনন্দমঠ উপন্যাসটি লেখা হয় সংস্কৃত ভাষায়। বন্দে মাতরম এই গানটি ভারাত মাতার বন্দনাগীতি এবং ভারাত মাতার রূপ কল্পনা করা । ভারাতের স্বাধীনতা যুদ্ধ এর সময় বিশেষ ভূমিকা পালন করে । 


আপনারা অনেকেই জানেন যে বন্দে মাতরম গানটি হল বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত । ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের অধিবেশনে ১৮৯৬ সালে বন্দে মাতরম গানটি সর্বপ্রথম গাওয়া হয় । বন্দে মাতরম গানটি রবিন্দ্রনাথ ঠাকুর  স্বয়ং সর্বপ্রথম গেয়েছিলেন জাতীয় কংগ্রেসের অধিবেশনে ।


ভারতীয় জাতীয় সংগীত বন্দে মাতরম গানটি ইংরেজিতে সর্বপ্রথম অনুবাদ করেন আরবিন্দ ঘোষ ১৯০৯ সালে । মাতরম গানটির ইংরেজি ভাষাই কিছু অংশ হল -

"Mother, I bow to thee!

Rich with thy hurrying streams,

bright with orchard gleams,

Cool with thy winds of delight,

Dark fields waving Mother of might,

Mother free." 



    বাংলা অনুবাদ :-

    "মা, আমি তোমাকে প্রণাম! আপনার তাড়াহুড়ো ধারা সহ সমৃদ্ধ, বাগানের আভা দিয়ে উজ্জ্বল, তোমার আনন্দের বাতাস দিয়ে শীতল অন্ধকার ক্ষেত্র প্রতাপের মা, মা মুক্ত।"

     শ্রী আরবিন্দ ঘোষ ইংরেজি ভাষাতে জাতীয় সংগীত অনুবাদ করার পর , তিনি এই গানটির নামকরন করেন - " Mother, I bow to thee! " । তিনি এই গানটিকে আসাধারন ভাবে বাংলা থাকে ইংরেজিতে সর্বপ্রথম অনুবাদ করেন ।


    বন্দে মাতরম এর পাঠ ঃ

    জাতীয় অংশ রুপে গৃহীত --------------------------------------

    বন্দে মাতরম্
    সুজলাং সুফলাং
    মলয়জশীতলাং
    শস্যশ্যামলাং
    মাতরম্।
    শুভ্র-জ্যোৎস্না-পুলকিত-যামিনীম্
    ফুল্লকুসুমিত-দ্রুমদলশোভিনীম্,
    সুহাসিনীং সুমধুরভাষিণীম্
    সুখদাং বরদাং মাতরম্।

    -----------------------------------

    সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত কর্তৃক বাংলা অনুবাদ বন্দে মাতরম গানটি হল :----------------

    বন্দনা করি মায়!
    সুজলা, সুফলা, শস্যশ্যামলা, চন্দন-শীতলায়!
    যাঁহার জ্যোৎস্না-পুলকিত রাতি
    যাঁহার ভূষণ বনফুল পাঁতি,
    সুহাসিনী সেই মধুরভাষিণী–সুখদায়–বরদায়!
    বন্দনা করি মায়!
    সপ্তকোটির কণ্ঠনিনাদ যাঁহার গগন ছায়,
    চৌদ্দ কোটি হস্তে যাঁহার
    চৌদ্দ কোটি ধৃত তরবার,
    এত বল তার তবু মা আমার অবলা কেন গো হায়?
    বন্দনা করি মায়!

    --------------------------------------------

    বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় এর রচিত পূর্ণ গানটি হল ঃ---------------

      বন্দে মাতরম্
    সুজলাং সুফলাং
    মলয়জশীতলাং
    শস্যশ্যামলাং
    মাতরম্৷৷
    শুভ্র-জ্যোৎস্না-পুলকিত-যামিনীম্
    ফুল্লকুসুমিত-দ্রুমদলশোভিনীম্
    সুহাসিনীং সুমধুরভাষিণীম্
    সুখদাং বরদাং মাতরম্৷৷
    সপ্তকোটিকণ্ঠকলকলনিনাদকরালে,
    দ্বিসপ্তকোটীভুজৈর্ধৃতখর-করবালে,
    অবলা কেন মা এত বলে৷৷
    বহুবলধারিণীং
    নমামি তারিণীং
    রিপুদলবারিণীং
    মাতরম্৷৷
    তুমি বিদ্যা তুমি ধর্ম্ম
    তুমি হৃদি তুমি মর্ম্ম
       ত্বং হি প্রাণাঃ শরীরে৷৷
    বাহুতে তুমি মা শক্তি
    হৃদয়ে তুমি মা ভক্তি
    তোমারই প্রতিমা গড়ি
       মন্দিরে মন্দিরে॥
    ত্বং হি দুর্গা দশপ্রহরণধারিণী
    কমলা কমল-দলবিহারিণী
       বাণী বিদ্যাদায়িনী
          নমামি ত্বাং
    নমামি কমলাম্
    অমলাং অতুলাম্
    সুজলাং সুফলাম্
    মাতরম্॥
         বন্দে মাতরম্
    শ্যামলাং সরলাম্
    সুস্মিতাং ভূষিতাম্
    ধরণীং ভরণীম্
    মাতরম্॥
    --------------------------------------------

    সংগৃহীত :

    সম্পূর্ণ তথ্য গুলি আমি কিছু গ্রন্থ পরে আপাদের কাছে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি । তথ্য গুলি অনেক জ্ঞানদায়ক । তথ্য গুলি অতি সাধারন বাংলা ভাষাই লেখা । আশা করছি আপাদের এই তথ্য গুলি ভালো লাগেছে ।

    একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

    0 মন্তব্য